মুহতারাম মামুনুল হক, আপনার সমীপে…

ইলিয়াস মাশহুদ ||

বাংলাদেশে লাখ লাখ রাজনীতিক আছেন
লাখ লাখ আলেম আছেন
লাখ লাখ মেধাবী আছেন
লাখ লাখ বক্তা আছেন
লাখ লাখ টাকাওয়ালা আছেন
লাখ লাখ সাহসী ব্যক্তি আছেন
লাখ লাখ স্বামী আছেন
লাখ লাখ পিতা আছেন
লাখ লাখ পুত্র আছেেন
লাখ লাখ সংগঠক আছেন
লাখ লাখ পরিচালক আছেন
লাখ লাখ পর্যটক আছেন
লাখ লাখ লেখক আছেন
লাখ লাখ কারাবরণকারী আছেন ……………….কিন্তু

মুহতারাম মামুনুল হক,
আপনি এতসব ‘লাখ লাখ’ থেকে ব্যতিক্রম। আপনি বংশগতভাবে ঐতিহ্যমণ্ডিত, মেধাবী, আলেম, হাফেজ, রাজনীতিক, লেখক, পরিচালক, বক্তা…। আপনি আর দশজনের মতো নিজেকে ভাববেন না। আপনার কৌশলগত সামান্য বিচ্যুতি আপনাকেসহ সারা দেশের তওহিদি জনতার হৃদয়ে রক্তক্ষরণ ঘটায়। আপনার একটি আশার বাণী সারা দেশের কোটি কোটি তওহিদি জনতাকে উদ্বেলিত করে। রাজপথে নামিয়ে আনে। চরম ফ্যাসিবাদি আওয়ামী সরকারও আপনাকে ভয় পায়। আপনি এখন আর সাধারণ কেউ নন। অসাধারণ। বিগ পার্সন।

দুনিয়ার সার্বিক অবস্থা সম্পর্কে প্রায় বেখবর আমার ঘরণীও যখন আপনার ‘সোনার গাঁ’ ট্রাজেডিকে ‘অবিবেচনাপ্রসূত’ বলে মন্তব্য করেন অথবা গতকাল পাড়াগাঁয়ের বাজারে জেলা পর্যায়ের এক ছাত্রলীগ নেতা যখন মন থেকে আপনাকে ‘ভালোবাসা’র কথা প্রকাশ করে, এমনকি কওমী জননী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা থেকেও আপনাকে জনপ্রিয় বলে স্বীকৃতি দেয়, বলে—এই অসময়ে, সঙ্গীন মুহূর্তে আপনার এভাবে ঘুরতে বের হওয়া ঠিক হয়নি, তখন সত্যিই কাঁদতে ইচ্ছে করে।

মুহতারাম,
অনেকেই বলেন, আপনি নাকি একা চলতে পছন্দ করেন। কারও পরামর্শ আমলে নেন না। যদিও কিছুটা বাস্তবতা আছে, তবু আমরা আপনাকে আরও সতর্ক অবস্থানে দেখতে চাই। আপনি আমাদের আশার পারদ, আপনি খেয়াল করেছেন কিনা জানিনা, তাওহিদবাদী মুসলমানমাত্রই আপনাকে নিয়ে স্বপ্ন বুনে। আপনার সোনার গাঁ ট্রাজেডিকে নবি ইউসুফ আ.-এর উজিরে মিসর হওয়ার ঘটনার সঙ্গে উপমা দেয়। আপনাকে বীরপুরুষ বলে। অনেকে আবার নিন্দামন্দও করে।

মুহতারাম,
বেশ আগ থেকেই লক্ষ করছি, কওমির সুশীল আলেম-বুদ্ধিজীবীরা আপনাকে একটি পরামর্শ বা উপদেষ্টা কমিটির আলোকে চলতে বলেছেন। কিন্তু আমরা আশাহত হয়েছি, হয়তো। আপনি এরকম কিছু করেছেন বলে আমাদের জানা নেই। যদি এমন কিছু থাকত, তাহলে সোনার গাঁ ট্রাজেডিটা হতো না। এটা আমরা বিশ্বাস করি।

আমরা চাই,
আপনি দুটি উপদেষ্টা কমিটির জন্য ৮/১০ জন যোগ্যতাসম্পন্ন ব্যক্তি বাছাই করুন। যারা আপনাকে বাস্তবসম্মত উপকারী পরামর্শ দিয়ে আপনার মিশন-ভিশন বাস্তবায়নে সাহায্য করবেন।  এ জন্য-

১. রাজনীতি-আন্দোলন-সংগ্রামের জন্য প্রয়োজনীয় দিকনির্দেশনা পেতে ৫জন যোগ্য অভিজ্ঞ রাজনীতিবিশেষজ্ঞ নিয়োগ বা নির্বাচন করুন।

২. আধ্যাত্মিকতা বা ইলমি ধারায় আরও ৩/৫ জনকে বাছাই করুন।

৩. যোগ্যতাসম্পন্ন ব্যক্তিগত কয়েকজন সহকারী নিযুক্ত করুন, যারা একই সঙ্গে আপনার বডিগার্ড হিসেবেও কাজ দেবে।

৪. আপনার লক্ষ্য নির্ধারণ করুন। যদি রাজনীতিই আপনার প্রধান লক্ষ্য হয়ে থাকে, তবে জনসম্পৃক্ত রাজনীতি করুন। গাছে আম আছে, নিচে থেকে চিৎকার দিয়ে বললে আম হাতে আসবে না। প্রয়োজন গাছে উঠা। এ জন্য রাজনীতির মূল কেন্দ্রে কীভাবে যাওয়া যায়, সেটা চিন্তা করা দরকার।

৫. দীনী বিষয়ের পাশাপাশি জনসম্পক্ত বিষয়গুলো নিয়েও ভাবতে হবে।

দুঃখিত, বয়সে আপনার চেয়ে ঢের ছোট হওয়ার পরেও আন্তরিকতা, মুহাব্বাত এবং দীনের দরদে কিছু কথা বললাম। আপনার দৃষ্টিগোচর হলে ভালো, না হলেও মন্দ না। আপনাকে আমরা অবিসংবাদিত একজন নেতা হিসেবে দেখতে চাই। আগামির বাংলাদেশ আপনার ইশরায় চলবে, এই প্রত্যাশায়…