অনলাইনে পোশাক কেনার আগে যা করবেন

ময়ের সঙ্গে সঙ্গে অনলাইনে শপিং বেড়েই চলেছে। অনলাইন শপিংয়ে সময় অনেকটাই বেঁচে যায়। মেলে বিভিন্ন ধরনের ডিসকাউন্টও। কিছু ই-কমার্স ওয়েবসাইটে দোকানের থেকে কম দামেও পোশাক পাওয়া যায়। আর এতে লাভ হয় ভেবেই আমরা ঝাঁপিয়ে পড়ে শপিং করতে থাকি। তবে ফেসবুক পেজে বিজ্ঞাপন দেখে কিংবা কোনো ওয়েবসাইটে ঢুকে যারা নিয়মিত কেনাকাটা করেন, তাদের সতর্ক থাকার বিকল্প নেই। এই ধরনের কেনাকাটায় আর্থিক ক্ষতির ঝুঁকি যেমন বেশি, তেমনি সাইবার হামলার শিকারও হতে পারেন! অনলাইনে পোশাক কিনতে চাইলে কোন কোন বিষয় মনে রাখা জরুরি জেনে নিন।

পরিচিত ব্র্যান্ডের পোশাক নেওয়া
পরিচিত ব্র্যান্ড মানেই তা অনেক বড় ব্র্যান্ড হতে হবে, এমন কোনো ব্যাপার নয়। কিন্তু এমন কোনো ব্র্যান্ডের পোশাক নিন, যাদের ড্রেস আপনি দীর্ঘদিন পরছেন। নতুন কোনো ব্র্যান্ডে ভরসা না করে বরং পুরনো ব্র্যান্ডেই ভরসা করে দেখুন। কারণ, হাতে সময় কম থাকলে এই ধরনের কম পরিচিত ব্র্যান্ডের পোশাক আপনাকে হতাশ করতে পারে।

সাইটের নির্ভরযোগ্যতা যাচাই করুন
যে সাইট থেকে পোশাক কিনবেন সেটি নির্ভরযোগ্য কি না যাচাই করে নিন। অপরিচিত কোনো সাইট থেকে পোশাক কেনা বুদ্ধিমানের কাজ নয়। অনেক সময় হ্যাকাররা বিভিন্ন লিংকে পোশাকের আকর্ষণীয় মূল্যছাড়ের লোভ দেখিয়ে আপনার ডিভাইসে ম্যালওয়্যার ছড়িয়ে দিতে পারেন।

রিভিউ দেখুন
যে জিনিসটি কিনছেন, রিভিউ বিভাগে গিয়ে তার সম্পর্কে মতামত দেখুন। এক ঝলক দেখলেই বুঝবেন বেশিরভাগ মানুষ পোশাকটি সম্পর্কে কী বলছেন। ভরসাযোগ্য মতামতের সংখ্যা বেশি হলে তবেই চিন্তা করুন কেনার।

ফেরতযোগ্য কি না জেনে নিন
অনেক সময় অনলাইনে কোনো পোশাক পছন্দ হলেও সেটি হাতে পাওয়ার পর পছন্দ হয় না। সে ক্ষেত্রে শুধু ডেলিভারি চার্জ দিয়ে পোশাকটি বিক্রেতা ফেরত নেবেন কি না তা জানাও জরুরি। পোশাকটি কেনার আগে তাই বিক্রেতার সঙ্গে কথা বলে নেওয়া উচিত।

সাইজ চার্ট দেখে নিন
প্রায় সময়ই ব্র্যান্ড অনুযায়ী সাইজ ভিন্ন হয় পোশাকের। এল সাইজ কোথাও কোথাও এম সাইজ হিসেবে বিক্রি হয়। সে ক্ষেত্রে নির্দিষ্ট মাপ জেনে নেওয়ার জন্য সাইজ চার্ট দেখে নিন।